দক্ষিণ সুনামগঞ্জে সনাতন ধর্মালম্বীদের পূজামন্ডবে দুস্কৃতিকারীদের হামলা

প্রকাশিত: ৬:১৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২১
নিউজ শেয়ার করুনঃ

ডেস্ক নিউজঃ

দক্ষিণ সুনামগঞ্জের পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের শত্রুমর্দন গ্রামের নাথপাড়া পদ্মনিলয়া পূজা কমিটির পূজামন্ডবে দুস্কৃতিকারীরা হামলা চালায় ও পূজা কমিটির ২ সদস্যকে জোরপূর্বক ভাবে তুলে নিয়ে যায় একই গ্রামের অনি শাহ (২০) এবং তার আরোও দুই সহপাঠী।

গতকাল ছিলো সনাতন ধর্মালম্বীদের বিদ্যা ও জ্ঞানের দেবী সরস্বতী পূজা। মাঘীপূর্ণিমার এই পবিত্র দিন উপলক্ষেই পূজা অর্চনার আয়োজন করে পদ্মনিলয়া পূজা কমিটিও। সন্ধ্যার পর কমিটির কার্যকরতারা গ্রামের অন্যান্য পূজামন্ডব পরিদর্শনের জন্য বের হলে পূজামন্ডবেই থেকে যান কমিটির সভাপতি শ্রী উৎস পাল সহ আরোও দুই সদস্য। এরইমধ্যে মন্ডবের এসে উপস্থিত হয় একই গ্রামের অনি শাহ ও তার দুই সহপাঠী। মন্ডবে এসে অনি শাহ উৎস পালকে তাদের সাথে পার্টিতে যাওয়ার জন্য বলেন। তখন উৎস পাল বলেন , মন্ডবের দায়িত্বে থাকার কারণে তিনি যেতে পারবেন না। তারপর, অনি শাহ এবং তার সহপাঠীরা অন্য দুই সদস্যকে পুনরায় একই কথা বলেন। তখন , তারাও অপারগতা জানালে অনি শাহ মারাত্মক ভাবে ক্ষেপে যান এবং তাদের অকথ্য ভাষায় গালাগালি করতে তাকে। এমতবস্থায় তারা পুনরায় অনি শাহের দুর্ব্যবহারের প্রতিবাদ করলে শুরু হয় নারকীয় তান্ডব। এক পর্যায়ে মন্ডবের সামনে রাখা চেয়ার গুলো ছুড়ে ফেলে দেয় অনি শাহ এবং তার দুই সহপাঠী। তান্ডবের একপর্যায়ে পদ্মনিলয়ার দুই সদস্যকেও জোরপূর্বক ভাবে তুলেও নিয়ে যায় অনি শাহ।

ঘটনার কিছুক্ষণ পরেই কমিটির সভাপতি উৎস পাল ফোনে হিন্দু যুব মহাজোটের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ শাখার সাবেক সভাপতি শোভন দেব কে বিষয়টা জানালে শোভন দেব এবং দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক শৈলেন সূত্রধর তাৎক্ষণিক ভাবে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তারপর , দক্ষিণ সুনামগঞ্জ পূজা উদযাপনের সাধারণ সম্পাদক বাবু সুরঞ্জিত চৌধুরী টপ্পা এবং হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক রঞ্জিত সূত্রধরও খবর পেয়ে সেই স্থানে উপস্থিত হোন।

সংবাদ পেয়েই তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হোন দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার এএসআই সমিরন দাস, এএসআই আনোয়ার, এএসআই নৃপেশ দাস। আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান জগলুল হায়দার ও বর্তমান চেয়ারম্যান নুরুল হক দ্রুত সময়ের মধ্যেই উপস্থিত হোন এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতাকর্মীরাও ঘটনাস্থলে উপস্থিত হোন।

সনাতন ধর্মালম্বীদের আরাধ্যের উপরে আঘাত এবং কমিটির দুই সদস্যকে জোর করে তুলে নিয়ে যাওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে পড়েন পুরো গ্রামবাসী। এর কিছুক্ষণ পরেই ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হোন মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব আবুল হাসনাত এবং দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মুক্তাদির হোসেন।

এই ন্যাক্কাজনক ঘটনার তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানান মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব আবুল হাসনাত। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে একাত্তরে দেশ স্বাধীন হয়েছিলো অসাম্প্রদায়িকতার একটি স্তম্ভের উপর। কিন্তু, দু’একটা দুষ্কৃতকারীর জন্য এমনতর অসাম্প্রদায়িক মেলবন্ধন ক্ষুন্ন করার কোন সুযোগ নেই। পরিশেষে, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মোক্তাদির হোসেন ক্ষুব্ধ গ্রামবাসীকে বলেন যে, আমরা এই ঘৃণ্য অপরাধের মূল হোতা অনি শাহ’কে গ্রেফতার করেছি অতিদ্রুত সময়ের মধ্যেই এবং বাদবাকি দুই অপরাধীকেও দ্রুতই আইনের আওতায় নিয়ে আসবো।