ছাতকের আরিয়ান প্রতিষ্ঠিত নৃত্য শিল্পী হওয়ার স্বপ্ন দেখছে

প্রকাশিত: ১১:৫২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২১, ২০২১
নিউজ শেয়ার করুনঃ

সুজন তালুকদার

ছাতকের আরিয়ান নৃত্যে প্রতিষ্ঠিত শিল্পী হওয়ার স্বপ্ন দেখছে। নৃত্য শিল্পী হওয়ার লক্ষে তালিম নিচ্ছেন একাধিক গুরুর কাছ থেকে, বর্তমানে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি সিলেট শাখায় চার বছর মেয়াদী নৃত্যে ডিপ্লোমা কোর্সে অধ্যয়ণরত আছেন। পরিবার ও গুরুদের উৎসাহ উদ্দিপনায় এগিয়ে যাচ্ছেন দিন দিন তার স্বপ্নের পথে। করছে বিভিন্ন স্টেজে নিয়মিত নৃত্য। এমনকি নৃত্যে পেয়েছেন অসংখ্য পুরস্কার।
ছাতক উপজেলার সিংচাপইড় ইউনিয়নের সিংচাপইড় গ্রামের মোহাম্মদ আক্তার হুসেন মোছা. লাইলী বেগমের পুত্র জাবেদ আহমদ আরিয়ান ছোট বেলা থেকে পড়াশোনার পাশাপাশি সে উচ্চতর নৃত্য শিক্ষায় ডিগ্রী লাভ করা স্বপ্ন দেখছে,নিজের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে একটি নাচের স্কুল খুলে তা আরো আগ্রহী সবার মাঝে ছড়িয়ে ২০১৪ সালে নিজের গ্রামের জগঝাপ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ২০১৯ সালে জাউয়া বাজার পাইগাও উচ্চ বিদ্যালয় থেকে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা সম্পন্ন করে। একই বিদ্যালয় থেকে এবার এস এস সি পরীক্ষায় অংশ নিবে।আরিয়ানের মা মো. লাইলী বেগম বলেন, অনেক প্রতিবন্ধকতা মোকাবেলা কওে নাচ শেকাতে হচ্ছে আরিয়ানকে। আমাদের দেশে নাচের ক্ষেত্রে অনেকে এখনও ভিন্ন চোখে দেখে। বিশেষ করে ছেলেদের বেলায়।নৃত্য প্রশিক্ষক প্রতিভা রায় কেয়া বলেন, আরিয়ান কবুব মনযোগ সহকারে নৃত্যও চর্চা করে । আমার বিশ্বাস একদিন সে তার স্বপ্নকে স্পর্শ করবে।ইতিহাস ঐতিহ্যের সাক্ষ্য বহন করা নৃত্য, এদেশের শিল্পকলার মধ্যে অন্যতম একটি শাখা। দেশ-বিদেশে বরেন্য নৃত্যশিল্পীরা তাদের নৃত্য পরিবেশন করে সুনাম অর্জন করছেন। এমনকি নাচের মাধ্যমে অনেক বড় বড় প্রতিবাদ সম্পন্ন করা হয়েছে। বরেণ্য নৃত্য শিল্পীরা তাদের শিল্প দিয়ে বুঝিয়েছেন নাচও প্রতিবাদের অন্যতম ভাষা। তেমনি জাবেদ আহমেদ আরিয়ান তার অদম্য চেষ্টা আর সাহসী মনোভাব নিয়ে যেতে চান বহু দুরে। অতিথিদের কাছ থেকে পুরস্কার গ্রহণ করছে। অনেক অপমান-লানচনা কে তুচ্ছ করে নিজেকে লেখাপড়ার পাশাপাশি নৃত্যে ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে কাজ করতে এগিয়ে চলছি। সকল বাঁধাকে পাত্তা না দিয়ে নিজের স্বপ্নকে বেশি গুরত্ব দিচ্ছি।

জাবেদ আহমদ আরিয়ান ইতোমধ্যে জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতায় উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়সহ আরো বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে অসংখ্য পুরস্কার অর্জন করছে।সে বর্তমানে জেলা শিল্পকলা একাডেমী সিলেটর নৃত্যকলা বিভাগে প্রশিক্ষণের পাশাপাশি প্রতিভা রায় কেয়া, সিনিহা সাহা ঝুমা ও শাহিদুল ইসলাম বহ্নি প্রশিক্ষকদের কাছ থেকে নৃত্যে তালিম নিয়েছে। সে নৃত্য চর্চার পাশাপাশি দিগন্ত থিয়েটার সিলেট ও বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত রয়েছে।মানুষ তার প্রতিভাকে কাজে লাগিয়ে পৃথিবী জয় করে নিতে পারে,অদম্য চেষ্টায় নিজের স্বপ্নকে ছাড়িয়ে যাক। এমনটাই নৃত্য, স্কুলের শিক্ষক ও মা-বাবা, আত্মীয়-স্বজন সবার চাওয়া।